১২ বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করলো বাংলাদেশ।একটা সময়ে বাংলাদেশ দলও এমন সময়ের মধ্য দিয়ে গেছে। আগে ব্যাট করলে ২০০ করাই কষ্ট হয়ে যেত।

পরে ব্যাট করলে স্কোরবোর্ডে লক্ষ্য না দেখে পুরো ৫০ ওভার খেলার চেষ্টা করা।

সেই দিন বদলে ফেলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট। কিন্তু সময় কখনো কখনো দল পাল্টেও ফিরে আসে! ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলেও ফিরে এসেছে এমন সময়।

সিরিজ তিন ম্যাচের। প্রথম দুই ম্যাচে আগে ব্যাট করে দেড় শ রানও তুলতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আজ চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় ওয়ানডেতে পরে ব্যাট করেছে সফরকারী দল।

জয়ের জন্য লক্ষ্য ছিল ২৯৮—কিন্তু ‘শিক্ষানবিশ’ ওয়ানডে দল গড়া ক্যারিবীয়দের ব্যাটিং দেখে কখনো মনে হয়নি, লক্ষ্যটা নিয়ে তাদের কোনো ভাবনা আছে!

অন্তত ব্যাটিংয়ের ধরন দেখে তা মনে হয়নি। তাতে যা হওয়ার তা-ই হলো। আজ তৃতীয় ম্যাচে ১২০ রানের জয়ে ওয়ানডে সিরিজে ক্যারিবীয়দের প্রত্যাশামতোই বাংলাওয়াশ করল তামিম ইকবালের দল। নিয়মিত অধিনায়ক হিসেবে এটাই প্রথম সিরিজ জয় তামিমের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাংলাওয়াশ করল বাংলাদেশ ।

ক্যারিবীয় টপ অর্ডার আগের দুই ম্যাচের মতো আজও ব্যর্থ। বলার মতো লড়াই যিনি করেছেন, তিনি আগের ম্যাচের ইনিংসে সর্বোচ্চ স্কোরার—রোভম্যান পাওয়েল।

আগের ম্যাচে আটে নেমে ৪১ রান করা পাওয়েলকে আজ ছয়ে পাঠিয়েছিল ক্যারিবীয় ম্যানেজমেন্ট। তিনি–ই ৪৭ রান করে যা একটু লড়েছেন। নইলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আজও দেড় শ রানের ওপাশে যেতে পারত কি না, তা নিয়ে সন্দেহ ছিল।

৯৩ রান তুলতেই নেই প্রথম ৫ উইকেট। শেষ ৫ উইকেট পড়েছে ৮৪ রানে।

সফরকারী দলের প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ার আঁচ না পেয়েই হয়তো ইচ্ছেমতো বোলার ব্যবহার করেছেন অধিনায়ক তামিম। তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ ও সাকিব আল হাসানের পাশাপাশি হাত ঘুরিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ, সৌম্য সরকার, এমনকি নাজমুল হোসেন শান্ত–ও!

বাংলাদেশ প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করেছে ১৩ বার। এর মধ্যে ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকেও একবার বাংলাওয়াশ করেছিল ফের সেই স্বাদ গ্রহন করল ২০২১ সালে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here